Ali-Asgars-three-childrens

আলী আসগরের তিনটি শিশুতোষ বই

পরিবার ও শিশু বিষয়ক আলী আসগরের তিনটি শিশুতোষ বই : শিশু, শিশু এক ভোরের সূর্য এবং ও আমার দেশের মাটি। প্যারেন্টিং-সহায়ক এই তিনটি বই—শিশুপাঠে বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে।

শিশু

মানবশিশু এক বিস্ময়কর সত্তা। শিশু বিকাশ এক বহুমাত্রিক প্রতিভাস। তার অভিব্যক্তি এক প্রপঞ্চ ঘটনা—জটিল ও আকর্ষণীয়।

বিস্ময়কর কারণ, মানবশিশুর তুল্য, এমনকি তার কাছাকাছি অন্য কোনো প্রজাতি খুঁজে পাওয়া যাবে না প্রাণীজগতে। মানবশিশুর বিকাশ বহুমাত্রিক।

কারণ, প্রাণের উদ্ভব ও বিবর্তনের যে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে মানবশিশুর আবির্ভাব, সেখানে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফল সে ধারণ করে আছে তার জিনের গঠনে, তিন বিলিয়ন মূল তথ্য যুগলরূপে।

শিশু যেখানে ভবিষ্যতের মানুষ, সেখানে তার বর্তমানকে সাজাতে হয় অনাগত ভবিষ্যতের কথা ভেবে। শিশুর জন্য শিক্ষার পরিকল্পনা ও সাংস্কৃতিক আয়োজন তাই গভীর দূরদৃষ্টি দাবি করে।

ফলে, বড়দের নিজস্ব অতীত বা বর্তমানকে শিশুর জন্য আদর্শরূপে ধরা যাবে না।

শিশুকে তার নিজস্ব জীবন নিয়ে তার অনাগত ভবিষ্যতের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করার কথা ভেবে তাকে সাহায্য করতে হবে।

এখানে প্রয়োজন সংস্কারমুক্ত, নিঃস্বার্থ, নৈর্ব্যক্তিক, উদার ও প্রকৃতার্তে সৃজনশীল মন—অন্ধ স্নেহ, আদর্শের মোহ ও পুরনো ধারণার গোড়ামি থেকে মুক্ত এক চেতনা।

একটি শিশু একজন বড় মানুষের ক্ষুদ্র সংস্করণ নয়। সে ভিন্ন এক মানুষ, নিজের অনন্য গুণাগুণ ও সম্ভাবনা নিয়ে।

সম্ভবত সে অন্য এক জগতের অধিবাসী তার নিজস্ব সময়ের ঘটনা প্রবাহ ও পরিবেশের পরিপ্রেক্ষিতে।

কারণ, সে যখন বড়দের সঙ্গে বাস করছে—বর্তমানের ঘটনা প্রবাহের মধ্যে, প্রতিষ্ঠিত জীবন ধারা ও মূল্যবোধের আবহে, সেটা এই সময়ের—যা বড়দের জন্য বর্তমান।

কিন্তু শিশু যখন বড়দের সমবয়সী হবে একটি কালিক ব্যবধানে, তখন পৃথিবী বদলে যাবে, হয়তো জীবন ধারাও।

নতুন সমস্যা, নতুন চ্যালেঞ্জ ও মূল্যবোধের পরিপ্রেক্ষিতে বর্তমানের শিশু তখন অসহায়ত্ব অনুভব করবে, যদি সে এই সময়ের মধ্যে বন্দী হয়ে পড়ে।

বিশ্বাসের চাপে নির্মাণ করা যাবে না, শিশুর আপন বৈশিষ্ট্যকে ভুলে গিয়ে।[ফ্লাপাংশ]

শিশু’র প্রকাশক : অনিন্দ্য প্রকাশ, ঢাকা, বাংলাদেশ। প্রকাশকাল : ২০০৭। ১২৭ পৃষ্ঠার বইটির মূল্য ১৫০ টাকা।

শিশু এক ভোরের সূর্য

আমাদের চারপাশে অনেক বিস্ময় ছড়িয়ে আছে, কিন্তু মানবশিশুর মতো বিস্ময়কর আর কিছু নেই।

শিশুকে নিয়ে শিল্পী, সাহিত্যিক, দার্শনিক, সমাজসেবক ও অভিভাবকগণ নানাভাবে তাঁদের ভাবনা ও উপলব্ধি প্রকাশ করে আসছেন প্রাচীন কাল থেকে।

এসবের প্রতিফলন আমরা দেখতে পাই সাহিত্যে, শিল্পে, মনোবিজ্ঞানের বইতে ও নানা উপদেশমালায়।

মানবশিশু আশ্চর্য এক প্রতিভাস—সূক্ষ্ম ও জটিল। এর বিকাশের পথ অনিশ্চিত, উন্মুক্ত ও অন্তহীন।

বিশ্বের যে কোনো বিষয়ের তুলনায় মানবশিশু সম্পর্কে আমাদের জ্ঞান অনেক বেশি অসম্পন্ন।

এই বইতে নানা দিক থেকে আলো ফেলে মানবশিশুকে পরিচিত করার ও তাকে আবিষ্কারের প্রয়াস রয়েছে। বইটি শিশুদের নিয়ে, শিশুদের জন্যে।

কিন্তু শিশুদের জন্যেই শুধু নয়, অন্তত সেই অর্থে, যেখানে শিশুদের বই বলতে সহজ শিশুপাঠ্য বইকে বোঝায়।

যারা শিশুদের নিয়ে কাজ করে, সেই অভিভাবক, সমাজকর্মী বা শিশু সংগঠক, অথবা

যাঁরা ফেলে আসা শৈশবকে আবিষ্কার করতে প্রয়াসী, তাঁদেরকেই যথার্থ পাঠক মনে করছি এই বইয়ের।

শিশুর মনস্তত্ত্ব ও তার অনুসন্ধিৎসা, দ্রুত বিকাশমান জ্ঞানের জগতে শিশুর অনুপ্রবেশ, শিশুর উপরে অর্পিত বর্ধিত দায়িত্ব,

শিশুসাহিত্যের আঙিনা, শিশুর বিজ্ঞানভাবনা, শিশুর দেহের বিকাশ ও আনন্দলাভের আবহ, শিশুর খেলার জগৎ, শিশুর জন্য শান্তিময় বিশ্ব,

শিশু-অধিকার সম্পর্কে বিশ্বজুড়ে নতুন উপলব্ধি—এমন নানা বিষয় স্থান পেয়েছে এই বইতে।

তথ্যের কণ্টকতা ও বিশ্লেষণের জটিলতা এই বইয়ের পাঠককে যদি কিছুটা শ্রমসাধ্য করে তোলে, শিশুকে আবিষ্কারের আকাঙ্ক্ষাই শুধু সেই শ্রমকে আনন্দদায়ক করতে পারে।[ফ্লাপাংশ]

শিশু এক ভোরের সূর্য : ড. আলী আসগর। প্রকাশক : অনিন্দ্য প্রকাশ, ঢাকা, বাংলাদেশ। প্রকাশকাল : ২০০৭। ১৪০ পৃষ্ঠার বইটির মূল্য ১৫০ টাকা।

ও আমার দেশের মাটি

ছোটদের গণিত ও বিজ্ঞান বই ও আমার দেশের মাটি। শুধু কবির আবেগপূর্ণ উক্তি নয়, বিজ্ঞানীদের বিশ্লেষণ ও উপলব্ধির অভিভ্যক্তি।

মাটির বিচিত্র উপাদান, গঠন, রূপান্তর ও প্রভাব নিয়ে অনুসন্ধিৎসা ও গবেষণার বিষয়।

কোটি কোটি বছর ধরে ঝড়, বৃষ্টি ও রোদ, জলস্রোত, সমুদ্রের ঢেউ এবং লতাপাতা গাছ ও প্রাণীদের দেহাবশেষের পচনক্রিয়া মাটিকে প্রস্তুত করেছে।

মাটি তাই কালের ছাপ বহন করে পৃথিবীর ইতিহাসকে ধারণ করে আছে। মাটি উদ্ভিদজগতের জন্য খাবার যোগায় নানা উপাদান রূপে।

মাটি গাছকে দাঁড়িয়ে থাকতেও সাহায্য করে। উদ্ভিদ ও প্রাণী-জগতের বিকাশ হতে পারত না, উর্বর মাটি না-থাকলে।

নানা রাসায়নিক উপাদান ধারণ করে রাখা ছাড়াও দানার ফাঁকে ফাঁকে মাটি ধরে রাখে পানি ও বাতাস।

মাটি শুধু শক্ত বা নরম, মিহি দানার বা বড় দানার, ভেজা বা শুকনো, উর্বর বা অনুর্বর রূপেই দেখা যায় না—এর রাসায়নিক নানা গুণও আছে।

হতে পারে অম্লযুক্ত বা ক্ষারযুক্ত, অথবা ধারণ করতে পারে নানা পরিমাণে বিভিন্ন রকম ধাতু।

মাটি উৎস উদ্ভিদজগতের—যা সূর্যের আলোকে রূপান্তরিত ও ধারণ করছে রাসায়নিক শক্তিরূপে।

মাটি উদ্ভিদের মাধ্যমে সম্ভব করেছে প্রাণিজগতের উদ্ভব ও বিকাশ—এই পৃথিবীতে। মাটি শুধু কৃষকের ফসল ফলাবার অবলম্বন নয়, গৃহনির্মাণের ও মৃৎশিল্পের উপাদানও।

সবচেয়ে বড় কথা, মাটি শুধু আমাদের খাবার ও আশ্রয় যোগায় না, এর বৈচিত্র্য নিয়ে আকর্ষণীয় হতে পারে ছোট ছেলে-মেয়েদের কাছে।

মাটি গুণাগুণ যাচাই ও বৈচিত্র্য পরীক্ষা ধরে দেখতে পারে তার বিজ্ঞানের খেলারূপে।

শিশুদের সেই চাহিদা যদি মিটাতে পারে, তা হলেই শুধু এই বই লেখার শ্রম মাটি হবে না।[ফ্লাপাংশ, লেখকের কথা]

ও আমার দেশের মাটি : ড. আলী আসগর। প্রকাশক : অনিন্দ্য প্রকাশ, ঢাকা, বাংলাদেশ। প্রকাশকাল : ২০১৪ (দ্বিতীয় সংস্করণ)। সচিত্র রঙিন ২৮ পৃষ্ঠার বইটির মূল্য ২০০ টাকা।

ডেস্ক পেরেন্টিং। সূত্র : রকমারি

বই তিনটি পড়তে চাইলে রকমারি থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন—

শিশু

শিশু এক ভোরের সূর্য

ও আমার দেশের মাটি

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *